নিউইয়র্কে ফিরে আসলেন ডা. ফেরদৌস

130

মোশারফ চেীধুরী: নিজ মাতৃভূমিতে করোনার চিকিৎসা দিতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে যাওয়ার পর ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষ করে নিউইয়র্কে চলে আসলেন আলোচিত ডা. ফেরদৌস। গতকাল বুধবার (২৪ জুন) দিবাগত রাতে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন আলোচিত এই চিকিৎসক।

গত ৭ জুন তিনি বাংলাদেশে যান ।এরই মধ্যে তাকে নিয়ে বিভিন্ন কুৎসা রটানো শুরু হয়। তারপরেও তিনি দেশে গেলে ওই ফ্লাইটের ১২৯ জন যাত্রীর মধ্যে ১২৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠিয়ে ফেরদৌসকে পাঠানো হয় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে।

এসময় এই চিকিৎসককে ‘বঙ্গবন্ধুর খুনির আত্মীয়’, ‘জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার’ অভিযোগ তুলে এক ধরনের প্রচার শুরু হয় ফেসবুকে।যা তিনি বরাবরই অস্বীকার করে এসেছেন। এদিকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষ করে তিনি দেশের করোনা রোগীদের জন্য কাজ করার চেষ্টা করেন।

অজ্ঞাত কারণে বাধাপ্রাপ্ত হন। ধারণা করা হচ্ছে, কোভিড-১৯ রোগীদের সেবা দেওয়া এবং বনানীতে একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে তোলার কাজে সরকারের সহযোগিতা না পেয়ে তিনি বাংলাদেশ ছাড়লেন।

করোনা চিকিৎসায় যুক্তরাষ্ট্রে প্রশংসিত ডা. ফেরদৌস সোশাল মিডিয়ায় স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নানা টিপস দিয়ে বিপুল আলোচনায় আসেন। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা রোগীদের চিকিৎসাসেবায় নিযুক্ত হয়ে বেশ সুনাম অর্জন করেন ডা. ফেরদৌস। একসময় প্রবাসীদের কাছে আস্থার নাম হয়ে ওঠেন তিনি।

জীবনের মায়া দূরে রেখে করোনা রোগীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে দিয়েছেন চিকিৎসা। বিশেষ করে, অসুস্থ প্রবাসী বাংলাদেশিদের কারো ফোন পেলেই ছুটে গেছেন। সঙ্গে নিয়ে গেছেন চিকিৎসা সরঞ্জাম ও খাদ্য সামগ্রী। নিউ ইয়র্কের মৃত্যুপুরীতে বসবাস করেও এক মুহূর্তের জন্য ভোলেননি রোগীদের সেবা দিতে। কাজটি অতি ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও বাড়ি বাড়ি গিয়ে তিনি চিকিৎসাসেবা দিয়েছেন। প্রতিদিন ১৮ ঘণ্টা বিরামহীন সেবা দিয়েছেন করোনায় আক্রান্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের।

যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসা পেশায় নিয়োজিত ফেরদৌস আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গেও সম্পৃক্ত। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শেখ রাসেল ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট তিনি। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সত্য নয়, বরং তিনি ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত এমন প্রামাণ্য দলিল নিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে হাজির হন তার শুভাকাঙ্খীরা। এরপর এই বিতর্ক থেমে যায়।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে করোনার প্রকোপ কমে গেলে তিনি মাতৃভূমির জন্য কাজ করতে উদ্যোগী হন। আগ্রহ দেখান বাংলাদেশে করোনা রোগীদের চিকিৎসা করবেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে বাধাপ্রাপ্ত হন ।

(Visited 70 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here