২৬ বাংলাদেশিকে লিবিয়ায় গুলি করে হত্যা

210

উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়ায় লিবিয়ায় এক মানব পাচারকারীর পরিবারের এক সদস্যের মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে ২৬ বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে স্থানীয় এক মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্যরা। বাকি চারজন আফ্রিকারই নাগরিক।

লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলেছে, এই ঘটনায় আরও ১১ জন বাংলাদেশি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। আহত ১১ জন বাংলাদেশীকে বর্তমানে জিনতান হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। দেশটির ইংরেজি গণমাধ্যম দ্য লিবিয়া অবজারভার বৃহস্পতিবার (২৭ মে) রাত পৌনে নয়টার দিকে তাদের ফেইসবুক পেজে জানায়, নিহত বাংলাদেশিরা মিজদা শহরে ওই মানবপাচারকারীর জিম্মায় ছিলেন।

জানা যায়,  এই সকল অভিবাসী মিজদা শহরের এক মানাবপাচারকারীর নিকট জিম্মি ছিলেন। কোনভাবে উক্ত পাচারকারী গতকাল রাতে অভিবাসীদের হাতে নিহত হন। পরবর্তীতে উক্ত পাচারকারীরর সহযোগী এবং আত্মীয়স্বজনরা জিম্মি অভিবাসীদের ক্যাম্পে নির্বিচারে গুলি চালালে ঘটনাস্থলে ২৬ জন বাংলাদেশীসহ ৩০ জন নিহত হন।

এতে আরও বলা হয়েছে, গত মঙ্গলবার রাতে অভিবাসীদের হাতে কোনোভাবে খুন হন একজন মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্য। এই ঘটনার জেরে ওই পাচারকারীর সহযোগী এবং আত্মীয়-স্বজনেরা জিম্মি অভিবাসীদের ক্যাম্পে নির্বিচারে গুলি চালায়।

দ্য লিবিয়া অবজারভারের পোস্টে বলা হয়েছে, নিহত বাংলাদেশিরা দেশটির মিজদা শহরে ওই মানবপাচারকারীর জিম্মায় ছিলেন।

দেশটির আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার মুখপাত্র সাফা মেশেলি বলেছেন, আমরা এই ট্র্যাজেডির বিষয়টি অল্প সময় আগে শুনেছি। ঘটনাটি বিশদভাবে জেনে আহতদের সহায়তা প্রদানের চেষ্টা করছি।

তেল সমৃদ্ধ অর্থনীতির কারণে লিবিয়া দীর্ঘকাল অভিবাসীদের গন্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও ভূমধ্যসাগর পেরিয়ে ইউরোপে পৌঁছানোর চেষ্টা করা মানুষের কাছে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পথ বলে বিবেচনা করা হয়।

(Visited 11 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here